বাংলাদেশের সেলিব্রেটি হিরো আলম গুগল সার্চ ইঞ্জিন এটাই প্রমান করলো

0
174
বাংলাদেশের সুপারস্টার সার্চ ইঞ্জিন গুগল
ফাইল ছবি

বাংলাদেশের সেলিব্রেটি হিরো আলম গুগল সার্চ ইঞ্জিন এটাই প্রমান করলো

প্রতিনিয়তঃ আমরা যে কোন কাজের জন্য গুগল সার্চ ইঞ্জিন থেকে বিভিন্ন তথ্য পেয়ে থাকি এবং অজানা বহু তথ্য সম্পর্কে জানতে পারি যা আমাদের নিত্যদিনের জন্য খুব সহায়ক ভূমিকা রাখে গুগল সার্চ ইঞ্জিন। তেমনি পছন্দের তারকার ছবি, তথ্য বা আপডেট পেতে বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন গুগলে (google) ঢুঁ মারেন তার শুভাকাঙ্খীরা। এই ক্ষেত্রে যাদের সবচেয়ে বেশি গুগলে খোঁজা হয় তাদেরই গুগল সার্চ ইঞ্জিন তাদেরকে প্রথম পেইজে দেখায়। গুগলের ফিল্টার এমনই। যার প্রতি মানুষের আগ্রহ বেশি থাকবে, তাকেই আগে দেখাবে।

এই ধরনের প্রতিষ্ঠান প্রায়ই বলে থাকে, তারা ব্যবহারকারীদের আগ্রহকে গুরুত্ব দিয়ে ব্যবসা করে।
এবার গুগলে ‘বাংলাদেশ ফিল্ম সুপারস্টার (Bangladesh Film Superstar)’ লিখে সার্চ করতে গেলে হিরো আলমকে নিয়ে তৈরি করা দুটি কনটেন্ট প্রথমে দেখা যাচ্ছে। আজ সোমবার বিকেল ২ টায় এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত গুগলে Bangladesh Film Superstar লিখে সার্চ করলে সবার উপরে হিরো আলমকে দেখাচ্ছে। যদি ইমেজ ও ভিডিওতে কাস্টমাইজ করা হয় সেখানেও হিরো আলম শীর্ষে। অবাক করার বিষয় হলো এই দুটির একটিও হিরো আলমের পেজ কিংবা ইউটিউব চ্যানেল থেকে পোস্ট করা হয়নি।

গুগোল এনালাইসিস নামে একটি অপশন আছে যেখানে খুব সহজে দেখতে পারবেন, কোন একটা শব্দ লিখলে সেটা কতজন আজকে সার্চ করেছে, রেজাল্ট দেখিয়ে দেয়।

আমাদের সকল নিউজ পেতে এখানে ক্লিক করুন

রবিবার গুগলে ‘Bangladesh Film Superstar’ লিখে সার্চ দিলে নিউজপয়েন্টটিভি নামের একটি ইউটিউব চ্যানেল থেকে হিরো আলমকে নিয়ে তৈরি করা ভিডিও প্রথমে দেখা গেছে। ২০১৬ সালের ১৫ ডিসেম্বর ভিডিওটি পোস্ট করা হয়। এখন পর্যন্ত সাড়ে পাঁচ লাখের বেশিবার ভিউ হয়েছে।

চ্যানেলটির অ্যাবাউটে ‘ভারত সরকারের ডিজিটাল কনটেন্ট এজেন্সি’ লেখা আছে।
দ্বিতীয় ভিডিও’র লোকেশনও ভারতে। খুশ বায়ারওয়া নামের এক যুবকের ব্যক্তিগত চ্যানেল থেকে ভিডিওটি পোস্ট করা। বাংলায়ও প্রায় একই অবস্থা। ‘বাংলাদেশি সুপারস্টার’ লিখে সার্চ দিলে ভিডিও অপশনে হিরো আলমকে নিয়ে তৈরি করা কনটেন্ট সবার আগে দেখা যাচ্ছে। বাংলাদেশের সুপারস্টার

 

প্রত্যাশার চেয়ে বেশি দর্শক হওয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন হিরো আলম

হিরো আলমের ছবি মুক্তি পেয়েছে গত শুক্রবার
ফাইল ছবি

বিলাসবহুল প্রাডো গাড়িতে হিরো আলম ও তার সহধর্মিণী চিত্রনায়িকা নুসরাত জাহান জিমু। আর দুইদিকে শত শত মানুষ, ঠিক এমন দৃশ্য দেখা গেল শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর কয়েকটি সিনেমা হলে। গতকাল থেকে সারাদেশের সিনেমা হল খুলে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু মুক্তি পায়নি কোনো নতুন ছবি আর এই সুযোগটাকেই লুফে নিয়েছেন বগুড়ার আশরাফুল আলম। গত মার্চে মুক্তি দেওয়ার অপেক্ষায় থাকা তার প্রযোজনা নির্মিত ছবিটি মুক্তি দিলেন করোনা পরবর্তী হল খুলে দেওয়ার প্রথম সপ্তাহেই।

হিরো আলম হাজারো জনতার উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, দীর্ঘ বিরতির পর হল খুলেছে আর প্রথম ছবি হিসেবে আমার সাহসী হিরো আলম ছবিটি মুক্তি পেয়েছে এতে আমি খুবই আনন্দিত এবং আপনাদের সাথে এসে সাক্ষাৎ করে খুবই গর্ববোধ করছি আমি। আমি গণমানুষের নায়ক। আপনাদেরকে আমি ভালোবাসি অন্তরের অন্তস্থল থেকে আশাকরি আমার ভালোবাসার মর্যাদা আপনারা দিবেন। সেই সাথে আপনারা আমাদের কষ্টে নির্মিত চলচ্চিত্রটি আপনারা এসে দেখবেন যেন আমার কষ্টটা সার্থক হয়। ইনশাআল্লাহ সামনে আরও নতুন কিছু ছবি উপহার দিব। পরবর্তী ছবিতে থাকছে অন্যরকম চমক।গত বছর আশরাফুল আলম নিজের প্রযোহজনায় সাহসী হিরো আলমের নামের একটি ছবি নির্মাণের কাজ শুরু করেন, যার সম্পূর্ণ কাজ সম্পন্ন হয় চলতি বছরের গোড়াতেই। আলম ছবিটি মুক্তি দেওয়ার পরিকল্পনা করেন মার্চ মাসের শেষদিকে। কিন্তু বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও করোনা আঘাত করে মার্চের গোড়ার দিকে। ফলে মার্চের মাঝামাঝি পেরোতেই জনজীবনে স্থবিরতা নেমে আসে। মাসের শেষদিকে ঘোষণা করা হয় সাধারণ ছুটি। কার্যত লকডাউন হয়ে পড়ে গোটা বিশ্ব। অন্যান্য সকল কিছুর মতোই বিনোদন মাধ্যমেও আঁচ লাগে করোনার তাণ্ডব। বন্ধ ঘোষণা করা হয় দেশের সকল সিনেমা হল সহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।

অক্টোবরের ১৬ তারিখ অর্থাৎ শুক্রবার অর্ধেক আসনে বসার শর্তে খুলে যায় দেশের সকল সিনেমা হল। এ ছাড়া সিনেমা হল কর্তৃপক্ষকে সব ধরনের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হয়। এদিকে সিনেমা হল খোলার দিনেই মুক্তি ৪০ টি হলে মুক্তি পায় আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলম প্রযোজিত ও অভিনীত সিনেমা সাহসী হিরো আলম।

মুক্তির প্রথম দিনেই রাজধানীর চিত্রামহল, জিঞ্জিরার নিউ গুলশান হল, ফার্মগেটের আনন্দ সিনেমাসহ নারায়ণঞ্জে নায়িকা সমেত একটি পাজেরো নিয়ে হিরো আলম ঘুরে বেড়ান। এসময় হিরো আলমকে দেখতে সিনেমা হলগুলোর সামনে উপচেপড়া ভিড় লক্ষ্য করা যায়। একের পর এক সেলফি তোলা, দর্শকদের হাত নেড়ে শুভেচ্ছা জানানো, হলের ভেতরে ভক্তদের উদ্দেশ্যে দু’চার কথা বলতে শোনা যায় যায় আলমকে।

আশরাফুল আলমের দাবি, তাঁর ছবি মোটামুটি ভালোই চলছে। তিনি বলেন, ‘আমি বলবো না আমার ছবি সুপার ডুপার হিট। কিন্তু আমার ছবি বিভিন্ন হলে চলছে, মানুষজন দেখতে আসছে। এসব দেখেই আমি সন্তুষ্ট। আমার ভালো লাগছে যে এতো মানুষ হলে আসছে, আমি আশা করি নাই। আমি বলবো আলহামদুলিল্লাহ।’

দেশের ৬৬ টি হলে শুক্রবার থেকে ছবি প্রদর্শনী শুরু হয়েছে। যার মধ্যে ৪০ টি হলে সাহসী হিরো আলম ও বাকি হলগুলোতে পুরনো ছবি চলছে।

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে