মর্গ ভরে গেছে, মৃতদেহ রাখা হচ্ছে হাসপাতালের বাথরুমে মেঝেতে

1
297
মরদেহ রাখা হচ্ছে বাথরুমে

মরদেহ কোভিড-১৯ ভয়াবহ অবস্থা দক্ষিণ আমেরিকার উত্তর-পশ্চিম অংশের দেশটি ইকুয়েডরে। দেশটিতে মানুষের মৃত্যুর মিছিল ক্রমাগত বেড়েই চলছে। দেশটির রাস্তায় রাস্তায় প্রতিদিনই পাওয়া যাচ্ছে লাশ।শহরটিতে করোনাভাইরাস আক্রান্ত ছড়ানোর প্রধানতম কেন্দ্রস্থল গয়াকিল রাজ্য।

ওইখানকার কয়েকটি হাসপাতালের ভয়াবহ অবস্থা শুরু হচ্ছে। মর্গ গুলোতে মৃতদেহ রাখার জায়গা সংকট দেখা দিয়েছে । তাই মৃতদেহগুলোকে রাখা হচ্ছে বাথরুমে মেঝেতে। এই ভয়াবহ অবস্থার কথা সকল গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন ওইখানকার ডাক্তার ও নার্সরা।

ওই হাসপাতালের নার্সরা বলেছেন, শত শত মানুষকে বেড দেয়া যায়নি। ফলে অনেকে বিনা চিকিৎসায় মারা গেছেন। এই যেন এক মৃত্যুপুরী হাসপাতলে পরিণত হয়েছে। হাসপাতালের বাইরেও অনেকে রোগী মারা গেছেন।

আমাদের নিউজ পেপার এর অন্যান্য সংবাদ পড়তে এখানে ক্লিক করুন

সেখানকার চিকিৎসক ও নার্স জানিয়েছেন, দিনে গড়ে ২০—২৫টি মরদেহ হাসপাতালের বাথরুমের মেঝেতে রাখা হচ্ছে। অন্য একজন নার্স জানান, হাসপাতালের প্রতিটি জায়গায় মৃতদেহ রাখার কথা জানিয়েছেন। জরুরি প্রত্যেকটি ওয়ার্ডেও মৃতদেহ ভর্তি।

দেশটির সরকারি তথ্য অনুযায়ী ও ওয়ার্ডোমিটারের তথ্য মতে, ইকুয়েডরে এখন পর্যন্ত কোভিড-১৯ আক্রান্ত মারা গেছেন ৮৮৩ জন। মোট আক্রান্ত হয়েছেন ২৪ হাজার ৬৭৫ জন। এবং সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১ হাজার ৫৫৭ জন।

ইকুয়েডরের সরকার যে মৃতের সংখ্যা প্রকাশ করেছে তা ভুল হিসাব বলছেন দেশটির সর্বস্তরের নাগরিক ও ডাক্তার- নার্সরা। তাদের দাবি, ইকুয়েডরে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা আরও অধিক বেশি। এমনকি এপ্রিলের প্রথম দিকেই ইকুয়েডরের গায়াজ প্রদেশে মোট ৬ হাজার ৭০০ মানুষ মারা গেছে। সরকারি গণনা অনেক তথ্য গোপন করা হয়েছে।

1 মন্তব্য

একটি মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে